১১ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, দুপুর ২:৩১

শিক্ষা

Screenshot_10

শিক্ষকতা শুধু একটি পেশা নয়; বরং এটি একটি জীবনব্রতের নামও। আমাদের সমাজে বহুল ব্যবহৃত একটি কথা হলো, ‘মা–বাবা সন্তানকে জন্ম দিলেও তাদের “মানুষ” হিসেবে গড়ার কারিগর শিক্ষকেরাই।’ একজন শিক্ষার্থীর মননের দ্বিতীয় জন্ম শিক্ষাগুরুর কাছে। শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভা, ব্যক্তিত্বের জাগরণ, মেধার উৎকর্ষ সাধন করে তাদের জীবন আলোকিত করে তোলেন একজন আদর্শ শিক্ষক। আলোকিত এবং মানবিক সমাজ গঠনের মূল চালিকাশক্তি ও দক্ষ কারিগর তিনি। একজন শিক্ষকের ছাত্র-ছাত্রীরাই রাষ্ট্রপ্রধান থেকে শুরু করে রাষ্ট্রের বিভিন্ন দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রথম স্বপ্নের বীজ বুনে দেন একজন শিক্ষক। তাই আমাদের সমাজে শিক্ষকদের স্থান অনেক উঁচুতে। শিক্ষক যেখানেই যান, সেখানেই তিনি সম্মানের আসনে অলংকৃত হয়ে থাকেন।

কিন্তু বর্তমান অস্থির সময়ে বাস্তবতা অনেকটা পাল্টে গেছে। আমাদের সমাজে ধরেছে ক্ষমতার পচন। ইদানীং সব ঘটনা ছাপিয়ে একটি বিষয় প্রায়ই সংবাদপত্রের পাতায় দেখতে পাই, দেশের কোথাও না কোথাও শিক্ষকেরা কমিটির সদস্যদের হাতে, তথাকথিত ছাত্রনেতাদের হাতে, অভিভাবকের হাতে, এমনকি শিক্ষার্থীদের হাতেও নিগৃহীত হচ্ছেন, লাঞ্ছিত হচ্ছেন, অপমানিত হচ্ছেন, শারীরিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হচ্ছেন।

Scroll to Top