১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:৩১

সারাদেশ

গুলিস্তানে সতর্ক অবস্থানে আ.লীগ

বিএনপি-জামায়াতের ডাকা অবরোধে নৈরাজ্যে ঠেকাতে রাজধানীর গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

রোববার (৫ নভেম্বর) সকাল ৯টার পর একে একে নেতারা আসতে শুরু করেন। সকাল সাড়ে ১০টায় জড়ো হয়ে কার্যালয়ের সামনে সতর্ক অবস্থান নিয়েছেন তারা।

নেতাকর্মীরা জানান, বিএনপি নাশকতার নামে নির্বাচন বানচাল করতে চায়। জনগণের জানমালের ক্ষতি করতে চায়। তারা দেশকে একটি অস্থিতিশীল অবস্থায় নিয়ে যেতে চায়। জনগণের জানমাল রক্ষায় তাদের এই সহিংসতার বিরুদ্ধে আমরা শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি, সতর্ক পাহারায় আছি। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে যুবলীগ, কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ আলাদাভাবে অবস্থান নিয়েছে।

উল্লেখ্য, সরকারের পদত্যাগের একদফা দাবিতে এবং মির্জা ফখরুলসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের মুক্তির দাবিতে রোববার সকাল থেকে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। তাদের শরিকরাও এই অবরোধ পালন করবে। পাশাপাশি জামায়াতে ইসলামীও আলাদা করে এই ৪৮ ঘণ্টা অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে। এর আগে গত সপ্তাহের শেষ তিন দিন (৩১ অক্টোবর-২ নভেম্বর) টানা অবরোধ পালন করে বিএনপি-জামায়াত। তার আগে ২৯ অক্টোবর হরতাল পালন করে বিএনপি ও এর শরিকরা।

গাজীপুরে আতঙ্ক নিয়ে খুলেছে কারখানা

গাজীপুরে আতঙ্ক নিয়ে শিল্প কারখানা খুলেছে কর্তৃপক্ষ। আজ শনিবার সকাল থেকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে কাজে যোগ দিতে দেখা যায় শ্রমিকদের। এর মাধ্যমে ছয় দিন পর রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্পে কর্মচাঞ্চল্য ফিরেছে। জেলার বিভিন্ন এলাকায় বিজিবি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সতর্ক অবস্থায় থাকতে দেখা গেছে।

গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকার তুসুকা গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক মাসুম হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, সকাল থেকে যাথারীতি কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে। শ্রমিকেরাও শান্তিপূর্ণভাবে কাজে যোগ দিয়েছেন। এখন দিনটা ভালো যায় কি না, সেটিই দেখার বিষয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি বছরের এপ্রিলে পোশাকশ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণে সরকার নিম্নতম মজুর বোর্ড গঠন করে। গত ২২ অক্টোবর বোর্ডের চতুর্থ সভায় শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি ২০ হাজার ৩৯৩ টাকা ন্যূনতম মজুরি প্রস্তাব করেন। এর বিপরীতে মালিকপক্ষ প্রায় অর্ধেক বা ১০ হাজার ৪০০ টাকা মজুরির প্রস্তাব দেয়। পরদিন গত ২৩ অক্টেবর থেকেই মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক ও তেলিচালা এলাকায় শ্রমিকেরা আন্দোলন শুরু করে। পরবর্তী সময়ে আশুলিয়া ও সাভারে শ্রম অসন্তোষ ছড়ালে সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয় কলকারখানা।

গাজীপুরে শ্রমিক আন্দোলনের সময় গাজীপুরের তিনটি কারখানায় অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা। এছাড়া শ্রমিক বিক্ষোভ থেকে মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ি, সফিপুর ট্রাফিক পুলিশ বক্স, গাজীপুরের ভোগড়া এলাকাসহ বেশ কয়েকটি স্থানে গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। তবে আগের মতোই এখনো জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় বিজিবি সদস্য ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মোতায়েন রয়েছে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশ বলছে, আজ সকালে জেলার সব কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে। শ্রমিকেরা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কাজে যোগ দিয়েছেন। সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত কোথাও কোনো অসন্তোষের খবর পাওয়া যায়নি।

গাজীপুরে ভোগড়া এলাকার একটি তৈরি পোশাক কারখানার প্রশাসনিক কর্মকার্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘আমরা কিছুটা ভয় নিয়েই কারখানা চালু করেছি। শ্রমিকদের মধ্যেও কাজ করার একটা আগ্রহ দেখা দিয়েছে। আশা করছি আর কোনো সমস্যা হবে না।’

গাজীপুর শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমরান হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, তাঁরা খোঁজ খবর রাখছেন। বিভিন্ন এলাকায় টহল দিচ্ছেন। এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো ঝামেলার খবর পাওয়া যায়নি।

ডেঙ্গুতে ঢাকার বাইরে এখন মৃত্যু বাড়ছে
২১ অক্টোবর থেকে গতকাল পর্যন্ত ঢাকার হাসপাতালে ৫৩ জনের মৃত্যু। এ সময় ঢাকার বাইরে মারা গেছেন ৮১ জন।

চলতি বছরের জুলাই মাসের শেষ দিক থেকে ঢাকার চেয়ে ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছিল। এখন সব মিলিয়ে ঢাকার বাইরে রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। দুই সপ্তাহ ধরে ঢাকার চেয়ে বাইরে শুধু রোগী নয়, বাড়ছে ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যাও।

দেশের বিশেষায়িত স্বাস্থ্যসুবিধার বেশির ভাগই ঢাকা শহরকেন্দ্রিক। এ পরিস্থিতিতে ঢাকার বাইরে ডেঙ্গুতে মৃত্যু বেড়ে যাওয়াকে আশঙ্কাজনক বলে মনে করেন জনস্বাস্থ্যবিদ ডা. মুশতাক হোসেন। তিনি গতকাল শুক্রবার প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঢাকার বাইরে আমাদের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো দুর্বল নয়। কিন্তু ডেঙ্গুর চিকিৎসায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হয়নি। এতে সেখানে রোগী বাড়ছে। আর তাঁরা দ্রুত বেশি মাত্রায় অসুস্থ হয়ে পড়ছে।’
গত ২১ অক্টোবর থেকে গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত ঢাকা নগরের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর এ সময় ঢাকার বাইরে মারা গেছেন ৮১ জন।

দেশে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ছয়জনেরই মৃত্যু হয়েছে ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে। এ নিয়ে চলতি বছর এডিস মশাবাহিত এই রোগে ১ হাজার ৩৮০ জনের মৃত্যু হলো।

গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (গত বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে শুক্রবার সকাল আটটা) ডেঙ্গু নিয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১ হাজার ৩৫৭ জন।

দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছর সবচেয়ে বেশি ৩৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে গত সেপ্টেম্বরে। আর গত মাসে মারা গেছেন ৩৫৯ জন। এর আগে আগস্টে ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয় ৩৪২ জনের। দেশে চলতি বছর মার্চ মাস ছাড়া সব মাসেই ডেঙ্গুতে মৃত্যু দেখেছে দেশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি বছর এ পর্যন্ত ডেঙ্গু নিয়ে ২ লাখ ৭৬ হাজার ১৬৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ১ লাখ ৩৮৭ জন এবং ঢাকার বাইরে ১ লাখ ৭৫ হাজার ৮৭৬ জন ভর্তি হন।

দেশে বড় আকারে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেয় ২০০০ সালে। ওই বছর মারা যান ৯৩ জন। করোনা মহামারির আগের বছর ২০১৯ সালে বড় আকারে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেয়। ওই বছর ডেঙ্গুতে ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন, মৃত্যু হয়েছিল ১৭৯ জনের। রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) তথ্য অনুযায়ী, ২০০০ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গুতে মারা গেছেন ৮৬৮ জন। এ বছর ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যু অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

তিন দিনের অবরোধের প্রথম দিন আজ লক্ষ্মীপুর জেলার কয়েটি স্থনে সড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন অবরোধকারীরা। আজ সকালে লক্ষ্মীপুর-রামগতি সড়কেছবি -সংগৃহীত
বিএনপি-জামায়াতের ডাকা টানা তিন দিনের অবরোধের প্রথম দিন আজ মঙ্গলবার লক্ষ্মীপুর জেলার কয়েটি স্থানে সড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে অবরোধকারীরা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারা সটকে পড়ে। এ সময় পুলিশ সড়ক থেকে প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে দেয়।

এদিকে জেলার বিভিন্ন স্থানে গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে ও আজ অভিযান চালিয়ে ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আলু আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

বাজারে আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে আনতে আলু আমদানিতে ছাড় দিয়েছে সরকার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশে আলুর চাহিদা পূরণের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ আলু উৎপাদন না হওয়ায় বাজারে দাম বেড়েছে। এ পরিস্থিতিতে বাজারে আলুর সরবরাহ বৃদ্ধি ও দাম স্থিতিশীল রাখতে আমদানিতে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

আগ্রহী আমদানিকারকদের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। আবেদনপত্রের সঙ্গে আমদানির জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবে। আবেদনপত্র গ্রহণের পর আমদানিকারকদেরকে আমদানি অনুমতি দেওয়া হবে। আমদানিতে ছাড় দেওয়ার ফলে বাজারে আলুর সরবরাহ বাড়বে এবং দাম কমবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বলেশ্বরের ভাঙনে বাগেরহাটের শরণখোলায় ফসলি জমি বিলীন হয়েছে
শরণখোলা-মোরেলগঞ্জ বেড়িবাঁধের গাবতলা এলাকায় মূল বাঁধের নিচে ১০০ ফুট এলাকার বেশ কিছু সিসি ব্লকও নদে বিলীন হয়ে গেছে।
টেকনাফে মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের হাতে এবার এক তরুণ অপহৃত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়ায় আবুল হাশেম (২২) নামের এক তরুণকে মুখোশধারী সন্ত্রাসীরা অপহরণ করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালিয়াপাড়ার (খামারপাড়ার) পাহাড়ের পাদদেশের বসতঘর থেকে বাইরে বের হয়ে অপহরণের শিকার হন তিনি।

বাহারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াস প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। অপহৃত আবুল হাশেম নোয়াখালিয়াপাড়ার বাসিন্দা আবদুর রহিমের ছেলে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)

২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ ঘিরে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। রাজধানীর প্রবেশপথগুলোসহ মহাসমাবেশ ঘিরে মোতায়েন করা হবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১০ হাজারের বেশি সদস্য। এ ছাড়া মহাসমাবেশের দিন জলকামান, সাঁজোয়া যান, কাঁদানে গ্যাস, সাউন্ড গ্রেনেড নিয়ে প্রস্তুত থাকবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সংস্থাটি বলছে, যখনই নিরাপত্তার ঘাটতি দেখা দেবে, তখনই শক্তি প্রয়োগ করা হবে।

এরই মধ্যে ২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশ রাজনীতিতে উত্তাপ ছড়িয়েছে। বিএনপি বলেছে, ঢাকার প্রবেশমুখে পুলিশের তল্লাশি, বাসাবাড়িতে অভিযান, ‘গায়েবি’ মামলায় গ্রেপ্তার—এসব কিছু বিবেচনায় নিয়েই তারা মহাসমাবেশ আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। দলটি মনে করে, নিরাপত্তার ঘাটতির অজুহাতে পুলিশের শক্তি প্রয়োগের যে চিন্তা, তা মূলত সরকার পতনের চলমান আন্দোলন দমনের কৌশলের অংশ।

অপর দিকে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ বলেছে, মহাসমাবেশের নামে বিএনপিকে ঢাকায় বসতে দেওয়া হবে না।

ডিএমপি সূত্র জানায়, বিএনপির মহাসমাবেশের দিন ঢাকার প্রবেশপথ গাবতলী, উত্তরার আবদুল্লাহপুর, নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড, শ্যামপুরের পোস্তগোলা সেতু, পুরান ঢাকার বাবুবাজার সেতুসহ রাজধানীতে ১০ হাজারের বেশি পুলিশ মোতায়েন করা হবে। ওই দিন ডিএমপির দাঙ্গা দমন বিভাগ, থানা-পুলিশ ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) মূল দায়িত্বে থাকবে। এ ছাড়া ডিএমপির বিশেষায়িত দল সোয়াটের সঙ্গে বোমা উদ্ধার ও নিষ্ক্রিয়করণ দল প্রস্তুত থাকবে।

মহাসমাবেশ সামনে রেখে এখন থেকে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা নজরদারি করছে বলে ওই সূত্র জানায়।

নিরাপত্তার বিষয়ে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশ মহাসমাবেশের আগে ঢাকার প্রবেশপথগুলোতে নিরাপত্তাচৌকি বসিয়ে তল্লাশি চালাবে, যাতে সন্ত্রাসীরা অস্ত্র ও বিস্ফোরক নিয়ে ঢাকায় ঢুকতে না পারে। নগরবাসীর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বিএনপির নেতা–কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে এ তথ্য সত্য নয়। গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আসামির বাইরে কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। দাগি আসামি ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ

প্রস্তুত থাকবে জলকামান, সাঁজোয়া যান

নিরাপত্তা প্রস্তুতির সঙ্গে যুক্ত ডিএমপির একাধিক কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ঢাকার প্রবেশপথগুলোতে নিরাপত্তাচৌকি বসিয়ে তল্লাশি চালানোর পাশাপাশি অভিযান চালিয়ে সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। অস্ত্রধারীরা যেন ঢাকায় ঢুকতে না পারে, সে জন্য পূজা শেষে নিরাপত্তাচৌকিতে তল্লাশি এবং ঢাকার হোটেল ও মেসে অভিযান জোরদার করা হবে। ঢাকার প্রবেশপথসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মহাসমাবেশের দিন পুলিশ জলকামান, সাঁজোয়া যান, কাঁদানে গ্যাস, সাউন্ড গ্রেনেড নিয়ে প্রস্তুত থাকবে। প্রবেশপথগুলোতে ২৭ অক্টোবর সন্ধ্যার পর থেকে গণপরিবহনে তল্লাশি চালিয়ে সন্দেহভাজনদের আটক করা হবে।

ডিএমপির কর্মকর্তারা বলেন, বিএনপি নেতা-কর্মীদের কোনো অবস্থাতেই প্রবেশপথের রাস্তায় বসতে দেওয়া হবে না। তাঁরা রাস্তায় বসে পড়লে শক্তি প্রয়োগ করে সরিয়ে দেওয়া হবে। যখনই নিরাপত্তার ঘাটতি দেখা দেবে, তখনই শক্তি প্রয়োগ করা হবে। প্রয়োজন রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হবে।

গতকাল রোববার রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, বিএনপির নেতা–কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে এ তথ্য সত্য নয়। গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আসামির বাইরে কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। দাগি আসামি ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ওই কর্মসূচি ঘিরে পুলিশ কী কী ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেবে, তা সমাবেশের আগমুহূর্তে চূড়ান্ত করা হবে।

ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২৮ অক্টোবরের বিএনপির মহাসমাবেশ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত উচ্চপর্যায়ের একটি দল ঢাকার অদূরে ৩০০ ফুট সংলগ্ন পুলিশ আবাসিক সোসাইটিতে (পিওএইচএস) রাজধানীর প্রবেশমুখে নিরাপত্তা, পুলিশ পাহারার ব্যবস্থা কেমন হবে, সে বিষয়ে আলোচনা করে। সেখানে বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের নজরদারি করার বিষয়েও সিদ্ধান্ত হয়।

আলোচনায় অংশ নেওয়া পুলিশের একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, মহাসমাবেশে অংশ নিতে বিএনপির নেতা–কর্মীদের একটি বড় অংশ ইতিমধ্যে ঢাকায় ঢুকেছেন। প্রতিদিনই বিএনপির নেতা–কর্মীরা আসছেন। বিএনপির মহাসমাবেশ সামাল দেওয়ার বিষয়ে সম্প্রতি পিওএইচএসে পুলিশের প্রস্তুতি মহড়া হয়েছে।

ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান গতকাল রাতে প্রথম আলোকে বলেন, দুর্গাপূজা উপলক্ষে ঢাকা জেলার বিভিন্ন স্থান ও রাজধানীতে ঢোকার প্রবেশমুখে নিরাপত্তাচৌকি বসিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে, যাতে কেউ অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে আইনশৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটাতে না পারে। এমনিতেই রাজনৈতিক কর্মসূচি ঘিরে পুলিশ বাড়তি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়। মহাসমাবেশ সামনে রেখে পুলিশ সতর্ক অবস্থায় আছে। ওই কর্মসূচি ঘিরে পুলিশ কী কী ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেবে, তা সমাবেশের আগমুহূর্তে চূড়ান্ত করা হবে।

স্থান নির্ধারণ করে দেবে ডিএমপি

মহাসমাবেশের অনুমতি চেয়ে শনিবার নয়াপল্টনে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানের কাছে চিঠি দিয়েছে বিএনপি। জানতে চাইলে হাবিবুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, তারা (বিএনপি) নয়াপল্টনে তাদের অফিসের সামনে ২৮ অক্টোবর বেলা দুইটায় সমাবেশ করার জন্য আবেদন করেছে। তাদের সমাবেশের আওতা, কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতি জেনেবুঝে সমাবেশের জন্য একটি স্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। তিনি আশা করছেন, তারা (বিএনপি) সেখানেই সমাবেশ করবে।

কুমিল্লায় যুবলীগ নেতা রুমি’র উন্নয়ন সমাবেশ ও গণমিছিল

শেখ হাসিনা’র সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এবং নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে উন্নয়ন সমাবেশ ও গণমিছিল করেছেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সহসম্পাদক এহতেশামুল হাসান ভূইয়া রুমি।

আজ ২১ অক্টোবর, শনিবার বুড়িচং উপজেলার রাজা বাজার ইউনিয়নে কয়েক হাজার নেতা কর্মী নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উল্লেখযোগ্য উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের লিফলেট বিতরণ করেন এবং তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে কুমিল্লা-৫ বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া আসনের সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে ব্যাপক গণসংযোগ করেন।

এহতেশামুল হাসান ভূইয়া রুমি বলেন, বুড়িচং ব্রাহ্মণপাড়ায় আমার মেধা, আমার পরিশ্রম, আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং আমার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের মাধ্যমে আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার সবচেয়ে সুগন্ধযুক্ত ও সবচেয়ে মেধাবী ফুলটি হতে পারি- এ ব্যাপারে আমি শতভাগ নিশ্চিত।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মানেই উন্নয়ন আর অগ্রগতি। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। রাত-দিন সবসময় যুবকরাই পারেন প্রতিটি ঘরে ঘরে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরতে এবং নৌকায় ভোট সংগ্রহ করতে। তাই আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রক্ষমতায় রাখতে নৌকা প্রতীকের জন্য ভোট প্রার্থনার বিকল্প নেই।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়ায় যাকেই নৌকা-মার্কার প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করবেন তার পক্ষেই আমরা সর্বাত্মকভাবে নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করব ইনশাআল্লাহ।

 

পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার ইসলামী ব্যাংক মিয়ারহাট শাখার অফিস সহকারী মো. ইকবাল হোসাইন।

পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার ইসলামী ব্যাংক মিয়ারহাট শাখার ইকবাল হোসেন নামের এক অফিস সহকারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যার পর মিয়ারহাট বাজারে বাহাউদ্দীন বুলবুল বিল্ডিংয়ের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ইকবাল (২৬) চট্টগ্রামের পুটিয়া উপজেলার হায়দাহঞ্জের আব্দুল নবির হোসেনের ছেলে। তিনি ওই রুম ভাড়া নিয়ে একা থাকতেন।

ইকবালের পাশের রুমে ভাড়া থাকা মো. নাইম নামের এক যুবক জানান, গতকাল শুক্রবার রাত ৯টার দিকে তাকে (ইকবাল) সর্বশেষ রুমে ঢুকতে দেখা গেছে। সারা দিনে তাকে দেখতে না পেয়ে কৌতূহল হয়। কারণ, তাকে সকাল ৯টার বেশি কখনো ঘুমানো থাকতে দেখেনি কেউ। তাই রুম বন্ধ দেখে রুমের দরজায় কড়া নেড়ে কোনো সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না।

একপর্যায়ে ঘরের মালিকের বড় ভাইকে ডেকে বিষয়টি জানানো হয়। এরপর তিনি ডাকাডাকির পর দরজার নিচে ভাঙা স্থান দিয়ে তাকালে তার পা ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। বিষয়টি পুলিশকে জানালে তারা এসে দরজা ভেঙে মরদেহ উদ্ধার করে।

নেছারাবাদ থানার ওসি মো. গোলাম সরোয়ার জানান, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছে, সঠিক কারণ জানা যায়নি। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে রোববার (২২ অক্টোবর) সকালে মরদেহ পিরোজপুর মর্গে পাঠানো হবে।

Scroll to Top